সুনামগঞ্জ, শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০

তাহিরপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৫ থানায় অভিযোগ

তাহিরপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৫ থানায় অভিযোগ

মো আব্দুল শহীদ:
তাহিরপুরে বসতবাড়ির জায়গা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের দু:সাহসিক হামলায় মহিলা সহ একই পরিবারের ৫ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। আহতরা হলো, মরহুম সাহান মিয়ার স্ত্রী আফতারনুরনেছা (৬০) ছেলে মহসিন (৩০), হারুন রশিদ (৪০), শাহনেওয়াজ ওরফে আবু মিয়া (৪৫) তার ছেলে ইমন মিয়া (২২), ফজরনুর মিয়ার ছেলে কিবরিয়া (৩০)। শুক্রবার সকাল ১০ টায় বাদাঘাট ইউনিয়নের বিন্নাকুলি গ্রামের সবুর আলীর অটো-রাইচ মিলের সামনে ঘটনাটি ঘটে। আহত শাহনেয়াজ ওরফে আবু মিয়া বাদি হয়ে ৫ জনকে আসামি করে তাহিরপুর থানায় একটি মারামারির অভিযোগ দায়ের করেন। স্থানীয় ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে গ্রামের একটি দোকানে বসে শাহনেয়াজের রের্কডীয় বসত বাড়ির জায়গা বিক্রী করে ফেলবে। জায়গা বিক্রী করার কথা শুনে আদিল হোসেন রাগানিত্ব হয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে শাহনেওয়াজের গলা টিপে ধরলে উপস্থিত কয়েকজন লোক আদিল হোসেনকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। কিছুক্ষণ পর আদিল হোসেন তার আতœীয় সজন সহ দেশীয় অস্ত্র রামদা, ডেগার, সুলফি, রড ইত্যাদি দ্বারা এলোপাতারি মাথায় খুপিয়ে রক্তাক্ত ও জখমপ্রাপ্ত করে। খবর পেয়ে তার আতœীয় স্বজন ঘঁটনাস্থলে পৌছে প্রতিপক্ষের কবল থেকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করায় বাদি পক্ষের পরিবারবর্গরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান। এ ব্যাপারে আহত শাহনেয়াজ জানান, আমার রের্কডীয় জায়গা আদিল হোসেনের কাছে বিক্রী না করায় আমাকে পরিকল্পিত ভাবে খুন করার চেষ্টা করে। হায়াতের জোরে আল্লাহ আমাকে বাছিয়ে দিয়েছেন। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আশা করি আইন ন্যায় বিচার করবে। এ ব্যাপারে আদিল হোসেনের এর মোবাইল ফোনে একাদিক বার কল করলেও ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ আতিকুর রহমান জানান, উভয় পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন
© দৈনিক আজকের সুনামগঞ্জ
বাস্তবায়নে : Avo Creatives