Logo
মঙ্গলবার ১৫ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ১৬ই সফর, ১৪৪১ হিজরী

তাহিরপুরের বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যানের প্রতিহিংসায় বন্ধ হয়ে আছে দীঘিরপাড়-পাঠানপাড়া খেয়াঘাটের উন্নয়ন

স্টাফ রিপোর্টার::
তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিনের বেআইনী নির্দেশে দীঘিরপাড়-পাঠানপাড়া খেয়াঘাট ভায়া বাদাঘাট জিসি রাস্তার মেরামত কাজ বন্ধ থাকায় উন্নয়ন কাজে বিঘœ ঘটছে। এবং ঠিকাদারী প্রতিষ্টান আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। সরকারি ভাবে প্রশাসনিক নিরাপত্তা প্রদান করে উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নের পথ সুগম করে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান অভিযোগকারী অমল কান্তি চৌধুরীর প্রতিনিধি বাবুল হোসেন। গত মঙ্গলবার তিনি জেলা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে জানা যায়, গ্রাম পুনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় দীঘিরপাড়-পাঠান পাড়া খেয়াঘাট ভায়া জিসি রাস্তার মেরামত কাজের টেন্ডার পান মের্সাস অমল কান্তি চৌধুরী নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্টান। ঠিকাদারী এ প্রতিষ্টান কাজ পাওয়ার পর মেরামত কাজ শুরু করেন। বর্তমানে কাজটি চলমান আছে। গত ২৪ সেপ্টেম্বর কাজ চলমান অবস্থায় বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন ও তার দলবলসহ কাজের সাইটে এসে দাপট দেখিয়ে অসৎ উদ্দেশ্যে কাজটি বন্ধ করে দেন। এমনকি উন্নয়ন কাজের সাথে জড়িত মেস্ত্রীগণের সাথেও খারাপ আচারণ করেন। তখন তিনি হুমকি দিয়ে যান “আমার সাথে দেখা না করে রাস্তায় কোন প্রকার কাজ করা যাবে না।” আমার সাথে বোঝাপড়া করার পর কাজ শুরু করবে। এ ঘটনায় উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুল্লাহ মিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক ঠিকাদারী প্রতিনিধিকে কাজটি বন্ধ রাখার সত্যতা স্বীকার করেন প্রতিবেদনে। ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের মালিক মের্সাস অমল কান্তি চৌধুরীর প্রতিনিধি বাবুল হোসেন বলেন, আমার প্রতিষ্টান দীঘিরপাড়-পাঠানপাড়া খেয়াঘাট ভায়া বাদাঘাট জিসি রাস্তার মেরামত কাজের টেন্ডার পায়। টেন্ডারের পর উন্নয়ন কাজ শুরু করি। কাজ চলমান অবস্থায় বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে উন্নয়ন কাজটি বন্ধ করে দেন। এতে আমার প্রতিষ্টান আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। উন্নয়নের স্বার্থে বন্ধ রাখা কাজ চলমান রেখে প্রশাসনিক নিরাপত্তা প্রদান ও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে জনকল্যাণ মূলক ভুমিকা রাখতে প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানান তিনি। লোকজন জানান, ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন কর্তৃক সরকারি গাছ আত্নসাতের মামলা ও তার বিরুদ্ধে অনাস্থা দেওয়ায় ইউপি সদস্য রেনু মিয়ার পুত্র হাকিকুল এর হাতপা ভেঙ্গে দেওয়ার মামলা কোর্টে বিচারাধীন রয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন কর্তৃক রোহিঙ্গাদের সনদপত্র দেওয়ার অভিযোগ সহ আরো অনেক অভিযোগ রয়েছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের মালিক মের্সাস অমল কান্তি চৌধুরীর প্রতিনিধি বাবুল হোসেন বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন কর্তৃক কাজ বন্ধ করার অভিযোগ এনে একটি অভিযোগ দায়ের করেন তাহিরপুর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবরে। এ ব্যাপারে তাহিরপুর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন অভিযোগ পাওয়া গেছে, এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। তদন্তে দোষী সাব্যস্থ্য হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিনের বক্তব্য জানার জন্য মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন